Breaking News

তাইল্যান্ড ওপেন থেকে বিদায় সাইনা নেহওয়াল, শ্রীকান্তের

সংবাদ সারাদিন, ওয়েবডেস্ক: দু’মাস পরে কোর্টে ফেরা স্মরণীয় হল না সাইনা নেহওয়ালের। তাইল্যান্ড ওপেন ব্যাডমিন্টনের দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে তাঁকে বিদায় নিতে হল। সাইনাকে হারিয়ে দিলেন সতেরো বছরের সায়াকা তাকাহাসি।

বৃহস্পতিবার সাইনা কিন্তু প্রথম গেমটা সহজেই জিতেছিলেন ২১-১৬ পয়েন্টে। কিন্তু দ্বিতীয় গেমে দুর্দান্ত ভাবে ম্যাচে ফেরে জাপানের সপ্তদশী। এবং কার্যত সাইনাকে দাঁড় করিয়ে গেম জিতে নেয় ২১- ১১ ফলে। শুধু তাই নয়, এই গেমে সাইনা একটা সময় অবিশ্বাস্য ভাবে ২-১৬ ফলে পিছিয়ে ছিলেন।

ম্যাচ তৃতীয় গেমে নিয়ে গিয়ে তাকাহাসির খেলা যেন আরও উন্নত হয়ে ওঠে। যদিও সাইনা শুরুতে একটা সময় এগিয়ে ছিলেন। কিন্তু ম্যাচের মাঝামাঝি সময় একেবারে অভিজ্ঞ খেলোয়াড়দের মতো জাপানের মেয়ে তাঁকে ধরে ফেলেন। শুধু তাই নয়, গেম এবং ম্যাচ বার করে মাত্র ৪৮ মিনিটে। শেষ গেম তাকাহাসি জেতে ২১-১৪ স্কোরে।

জাপানের প্রতিপক্ষ খুব ভাল খেললেও ব্যাডমিন্টন বিশেষজ্ঞদের ধারণা, সাইনা এখনও পুরো সুস্থ হননি। এ দিন শুরুটা ভাল করলেও সেই ছন্দ ধরে রাখতে তিনি ব্যর্থ হন। বহুক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে তিনি কোর্টও কভার করতে পারছেন না। যে কারণে পরের পর ড্রপ শট মেরে সহজেই পয়েন্ট তুলে নিয়েছে তাকাহাসি।

এ দিন সাইনার মতোই টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গেলেন কিদম্বি শ্রীকান্ত। পুরুষ বিভাগের দ্বিতীয় রাউন্ডে তাঁকে হারালেন খোসিত ফেতপ্রদাব। শ্রীকান্ত হারলেন ২১-১১, ১৬-২১ ও ১২-২১ ফলে। ভারতের জন্য খারাপ খবর এখানেই শেষ হচ্ছে না। সাইনা, শ্রীকান্তের মতো বৃহস্পতিবার বিদায় নিয়েছেন পারুপল্লি কাশ্যপও। সাইনার স্বামী কাশ্যপ তো বিশ্রী খেলে হেরে যান ৯-২১ এবং ১৪-২১ ফলে। তাঁকে হারান টুর্নামেন্টের তৃতীয় বাছাই চিনের নামী তারকা চৌ তিয়েন চেন।

এত খারাপ খবরের মধ্যে ভারতীয়দের জন্য একটাই আনন্দের খবর। পুরুষদের ডাবলসে সাত্ত্বিকসাইরাজ রানিকরেড্ডি-চিরাগ শেট্টি জুটি সবাইকে চমকে দিয়েছে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে। ডাবলসে তাঁরা হারিয়েছেন ইন্দোনেশীয় জুটি মহম্মদ রিয়ান আরদিয়ান্তো-ফাজার আলপিয়ান জুটিকে। মাত্র ৩৯ মিনিটে ভারতীয় জুটি ইন্দোনেশীয়দের হারান ২১-১৭, ২১-১৯ ফলে। পুরুষদের ডাবলসে এই ইন্দোনেশীয় জুটি এই মুহূর্তে রয়েছে সাত নম্বরে। আর চিরাগরা গত সপ্তাহেও জাপান ওপেনে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছিলেন। শেষ আটে ভারতীয় জুটি খেলবে দক্ষিণ কোরিয়ার চোই সোলগিউ এবং সিয়ো সুয়েং জায়ের বিরুদ্ধে। (তথ্য সৌজন্যে: আনন্দবাজার পত্রিকা )

error: Content is protected !!