Breaking News

সুতো দিয়ে প্রতিমা তৈরি করে মালদাবাসীকে তাক লাগাতে প্রস্তুত পুলিশ কর্মী

সংবাদ সারাদিন, পরিতোষ সরকার, মালদা: এসেছে শরৎ, আর শরৎ মানেই বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসবের তোড়জোড়। আকাশের রোদ মেঘের খেলার মাঝেই মাকে বরণ করার প্রস্তুতিতে মেতেছে আপামর বাঙালী। খবরের কাগজ সহ বিভিন্ন সামগ্রী দিয়ে দূর্গা প্রতিমা তৈরি করে জেলায় সুনাম ছড়িয়েছে পেশায় হোমগার্ড পুলিশ কর্মী বিষ্ণুচন্দ্র সাহা’র। প্রতিমা তৈরির মধ্য দিয়ে তিনি তুলে ধরেন বিভিন্ন সমাজ সচেতনতার বার্তা।

এবারও মাছ ধরার জালের সুতো দিয়ে প্রতিমা তৈরি করে জেলাবাসীকে তাক লাগাতে প্রস্তুত বিষ্ণু বাবু। বাঁকুড়ার ডোকরা শিল্পের আদলে তৈরি করছেন প্রতিমা। থিম হিসাবে তুলে ধরেছেন বিশ্ব উষ্ণায়নের বার্তা। মালদা শহরের ২ নম্বর গর্ভর্নমেন্ট কলনীর বাগাযতীন ক্লাবের পূজিত হবে বিষ্ণুবাবুর সুতোর তৈরি এই প্রতিমা। তবে এবারও দর্শকদের নজর কাড়বে এই প্রতিমা বলে আশাবাদী পুলিশ কর্মী শিল্পী বিষ্ণুচন্দ্র সাহা।

ইংরেজবাজার শহরের কৃষ্ণকালিতলার বাসিন্দা বিষ্ণুচন্দ্র সাহা। পরিবারে রয়েছে স্ত্রী ও এক মেয়ে। পেশায় তিনি রাজ্য পুলিশের হোমগার্ড কর্মী। বিষ্ণুবাবু সখের বসে প্রতিমা তৈরি করেন। একসময় বাবা মনহর চন্দ্র সাহা মৃৎশিল্পী ছিলেন। বাবার কাছেই তার হাতেখড়ি। তবে চাকুরি পেয়ে যাওয়ায় বন্ধ হয় প্রতিমা তৈরির কাজ।

গত দশ বছর থেকে কাজের ফাঁকে অবসর সময়ে একটা দুটো করে প্রতিমা তৈরি করছেন বিষ্ণু বাবু। তবে নতুন চিন্তা ভাবনায় প্রতিমা তৈরি করে একাধিকবার সন্মানিত হয়েছেন তিনি। কাগজের প্রতিমা তৈরি করে ২০১৬ সালে বিশ্ব বাংলা সন্মানও তার ঝুলিতে। তবে মাঝে শারীরিক অসুস্থতার জন্য তিন বছর প্রতিমা তৈরি করতে পারেননি তিনি। এবারে ফের প্রতিমা তৈরির কাজ করছেন।

এই প্রতিমা তৈরি করতে প্রায় এক বছর লেগেছে। খড়ের তৈরি বুনির উপর প্যারিস প্লাস্টারের প্রলেপ দেওয়া হয়েছে। তার উপর আঠার মাধ্যমে মাছ ধরার সুতো দিয়ে প্রতিমা তৈরি করছেন। এই প্রতিমা তৈরি করতে প্রায় ৩৫ কেজি সুতোর প্রয়োজন হয়েছে। প্রতিমার এক হাতে থাকছে একটি পৃথিবী। মাথার উপরে শিব মূর্তি। শিবের জটা থেকে জল পড়বে পৃথিবীর উপর। ঠান্ডা করবে পৃথিবীকে। বিশ্ব উষ্ণায়নের বার্তা দিতে এমন চিন্তাভাবনা তার। একা কাজ করা সম্ভব হয়না তাই স্ত্রী পূর্ণিমা সাহা নিয়মিত সাহায্য করেন।

বিষ্ণুবাবু জানান, বিগত প্রায় ১০ থেকে ১২ বছর ধরে প্রতিমা তৈরি করে আসছি। বিগত দিনে ফেলে দেওয়া সামগ্রী সহ বিভিন্ন জিনিস দিয়ে প্রতিমা তৈরি করেছি। বাঁকুড়ার ডোকরা শিল্পের দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে। সেই শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখতে আমার এই ক্ষুদ্র প্রয়াস। মাছ ধরার জাল দিয়ে এবারের প্রতিমা গড়ছি। বিশ্ব শান্তি রাখতে বিশ্ব উষ্ণায়নকে থিম করা হয়েছে। প্রতিবছর দর্শরা আমার প্রতিমা দেখার জন্য অপেক্ষায় থাকে। এই বছর সুতোর তৈরি প্রতিমা আশাকরি মন জয় করব দর্শনার্থীদের।

error: Content is protected !!