Breaking News

অবিরাম বৃষ্টিতে জলমগ্ন বালুরঘাট শহর, বাড়ছে নদীর জল

সংবাদ সারাদিন, বালুরঘাট: একটানা ভারি বৃষ্টিতে বালুরঘাটের পুজো মণ্ডপে জল ঢুক্তে শুরু করেছে। বাড়ছে আত্রেয়ী, পুনর্ভবা সহ টাঙন নদীর জল। ভারি বৃষ্টির কারণে পুজো মণ্ডপের সজ্জা ভেঙে পরছে। উঠে যাচ্ছে মণ্ডপের রং। এদিকে টানা বৃষ্টিতে বালুরঘাট শহরের বেশীর ভাগ রাস্তায় হাঁটুজল জমা হয়ে যায়। জল ঢুকছে মালদা লাগোয়া হরিরামপুরে বেশ কিছু গ্রামে। লাগাতার বৃষ্টিতে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে জেলা জুড়ে। এক নাগারে বৃষ্টিতে সমস্যায় পরেছেন জেলা পুজো উদ্যোক্তা থেকে সাধারণ মানুষ।

মহালয়া পেরিয়ে গেছে। হাতে একদম আর সময় নেই। বাংলার শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গা পূজা এখন দরজায় কড়া নাড়ছে। এদিকে শেষ পর্যায়ের কাজে ব্যস্ত দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন পুজো কমিটি গুলি। এই সময় চরম ব্যস্ততা থাকে জেলার ব্যবসায়ীদের মধ্যেও। তবে বিগত কয়েক ধরে চলা অবিরাম বৃষ্টিতে সাধারণ জনজীবনে ব্যাঘাত ঘটছে। পাশের জেলা মালদার পাশা বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে দক্ষিণ দিনাজপুরেও। নদীর জল এক লাফে অনেকটা বেড়েছে। মালদা লাগোয়া হরিরামপুর ব্লকের পুণ্ডরী গ্রাম পঞ্চায়েতের বেশ কিছু গ্রামে জল ঢুকছে। জল ঢোকার মুখে হরিরাম ব্লক গ্রামীণ হাসপাতালেও। এদিকে পুজোর মধ্যে বৃষ্টি তার উপর গোটা শহরের বেশীর ভাগ অঞ্চলের রাস্তা জলমগ্ন। ফলে ব্যাপক সমস্যায় পড়েছে পুজো উদ্যোক্তা থেকে সাধারণ মানুষ। প্রবল বৃষ্টিতে পুজো মণ্ডপে জল ঢুকে গেছে। রং উঠে যাচ্ছে বিভিন্ন পুজো মণ্ডপের। এছাড়াও সৃষ্টি একাডেমীর পুজো মণ্ডপের চার পাশে এক হাঁটুজল জমে গেছে। মণ্ডপের ভেরত ও বাইরে কাঁদা জমে গেছে। ফলে পুজো উদ্যোক্তারা ব্যাপক সমস্যায় পড়েছে।এদিকে আবহাওয়া দফতরের তরফ থেকে জানানো হয়েছে দশমী অবধি এমন আকাশ থাকবে। ফলে চিন্তার ভাঁজ পুজো উদ্যোক্তা থেকে সাধারণ মানুষের মধ্যে।

এদিকে এবিষয়ে প্রিয়নাথ বর্মণ নামে এক ব্যক্তি জানান, আকাশের উপর কারো জোর নেই। যে ভাবে বৃষ্টি হচ্ছে তাতে করে একরকম বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে। সাধারণ জন জীবনের পাশাপাশি সমস্যায় পড়েছেন ব্যবসায়ী থেকে পুজো উদ্যোক্তারা। বৃষ্টির কারণে ক্ষতি হচ্ছে চাষেরও। দোকানে লাখ লাখ টাকার মাল কিনে বিক্রি নেই। পুজো মণ্ডপে জল ঢুকছে। এমন অবিরাম বৃষ্টি হলে পুণ্ডুল হতে পারে পুজো। বন্ধ হয়ে যেতে পারে বেশ কিছু পুজো।

অন্য দিকে পুরো বিষয়ের উপর নজর রাখা হচ্ছে বলে জেলা শাসক নিখিল নির্মল জানিয়েছেন।..