Breaking News

রায়গঞ্জে যুবতীকে শ্লীলতাহানি ঘিরে সংঘর্ষ, ৩ পুলিশ কর্মী সহ আহত বেশ কয়েকজন

সংবাদ সারাদিন, : যুবতীকে শ্লীলতাহানির ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষ। দশমীর রাতে প্রতিমা বিসর্জনের শোভাযাত্রায় এই সংঘর্ষের জেরে গুলি চালনোর অভিযোগ উঠেছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে আক্রান্ত তিন পুলিশ কর্মী সহ বেশ কয়েকজন। এমনি ঘটনা ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ শহরের বকুলতলা এলাকায়। ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশবাহিনী পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহতদের রায়গঞ্জ গভর্নমেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে।

বিসর্জনের শোভাযাত্রায় শ্লীলতাহানির ঘটনার প্রতিবাদে আন্দোলনে তৃণমূল ছাত্র সংগঠন টিএমসিপি। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে রায়গঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের নির্যাতিতা মহিলার। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।

উল্লেখ্য দশমীর সন্ধ্যা থেকে প্রতিমা নিরঞ্জনের জন্য রায়গঞ্জ শহরে প্রতিটি পুজো কমিটি রায়গঞ্জ শহরের রাজপথে শোভাযাত্রা বের করে। পুজো কমিটিগুলির এই শোভাযাত্রা দেখতে রাস্তার দু-ধারে হাজার মানুষের সমাগম হয়। মঙ্গলবার রাত এগারোটা নাগাদ শহরের বকুলতলা এলাকায় এক মহিলার শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ ওঠে এক যুবকের বিরুদ্ধে। নির্যাতিতা মহিলা প্রতিবাদও করে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে ওঠে এলাকা।

স্থানীয় সূত্রের খবর, পরে ওই অভিযুক্ত যুবক দলবল নিয়ে এসে ওই নির্যাতিতা মহিলার উপর আবার চড়াও হলে এলাকার যুবকদের সঙ্গে ব্যাপক সংঘর্ষ বেধে যায়। অভিযোগ দুস্কৃতীরা গুলিও চালায়। ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন রায়গঞ্জ থানার টাউন বাবু সন্দীপ চক্রবর্তী সহ বিশাল পুলিশবাহিনী। পুলিশের উপরেও হামলার ঘটে। রায়গঞ্জ থানার টাউন বাবু সন্দীপ চক্রবর্তী সহ তিন পুলিশ কর্মী আহত হন। আহত হন দু-পক্ষের আরও বেশ কয়েকজন। এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে রায়গঞ্জ থানা থেকে র‍্যাফ এনে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। প্রকাশ্যে জনাকীর্ণ এলাকায় থানা থেকে মাত্র দুশো মিটার দূরে এক মহিলার শ্লীলতাহানির ঘটনার প্রতিবাদে স্থানীয় বাসিন্দারা রায়গঞ্জ থানায় বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে।

অভিযোগ রায়গঞ্জ থানার বাইরের কিছু অংশে ভাঙচুরও করে উত্তেজিত বিক্ষোভকারীরা। নির্যাতিতা ও-ই মহিলা অভিযুক্তের বিরুদ্ধে রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পাশাপাশি কঠোর শাস্তি দাবি তুলেছেন। এই ঘটনার তদন্ত করে কঠোর ব্যাবস্থা নেওয়ার দাবি তুলেছেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি অনুপ কর। অবিলম্বে পুলিশ যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহণ না করলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামার হুমকি দিয়েছে তৃণমূল ছাত্রপরিষদ। উত্তর দিনাজপুর জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমার জানিয়েছেন, অনেক রাতে ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। এই ঘটনার জেরে শহর জুড়ে আলোড়ন ছড়িয়েছে।

error: Content is protected !!