Breaking News

দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনে গিয়ে আক্রান্ত গঙ্গারামপুরের বিজেপি যুব নেতা, অভিযুক্ত তৃণমূল

সংবাদ সারাদিন, গঙ্গারামপুর : দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনে গিয়ে আক্রান্ত হলেন গঙ্গারামপুরের বিজেপি যুব মোর্চার গ্রামীণ মণ্ডলের আইটি সেল কনভেনার সুমিত ওঁরাও। প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয় আক্রান্ত সুমিতকে। ঘটনায় অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে। যদিও ঘটনার কথা অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

জানা গেছে, দশমীর রাতে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর ব্লকের নন্দনপুর অঞ্চলের সহনালী গ্রামের একটি সার্ব্বজনীন দুর্গা পূজার প্রতিমা বিসর্জনে গেছিলেন সুমিত ওঁরাও। অভিযোগ, বারোয়ারি সেই পুজো স্থান থেকে তাকে চলে যেতে বলে কিছু তৃণমূলের ছেলেরা। সুমিত তার প্রতিবাদ করাতে মারধর করতে থাকে তারা। চিৎকারে সুমিতের মা সহ বাড়ির লোকেরা ছুটে আসে। এরপরেই সুমিতকে ছেড়ে দিয়ে পালিয়ে যায় তারা। ঘটনা বুধবার জানাজানি হতেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। ঘটনায় মৌখিক ভাবে অভিযোগ দায়ের হয়েছে গঙ্গারামপুর থানায় বলে জানা গেছে।

এবিষয়ে আক্রান্ত সুমিত ওঁরাও জানান , পাড়ার পুজো মণ্ডপে প্রতিমা বিসর্জন দেখতে গিয়েছিল সে। বিজেপি করার জন্য তাকে পুজো মণ্ডপ থেকে চলে যেতে বলে কিছু তৃণমূলের ছেলে। ঘটনার প্রতিবাদ করাতে তারা তাকে মারধর করে। তার চিৎকারে ঘটনাস্থলে স্থানীয়রা ছুটে এলে পালিয়ে যায় তারা। ঘটনায় পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

এবিষয়ে বিজেপি যুব মোর্চার জেলা সভাপতি অভিষেক সেনগুপ্ত জানান, ঘটনার খবর পেয়েছি। সুমিত যুব মোর্চার আইটি সেল কনভেনার। তার উপড় আগেও তৃণমূলের দুস্কৃতিরা আক্রমণ করেছিল। পুজো সকলের। সেখানে শুধুমাত্র বিজেপি করার অপরাধে সুমিতের ওপর এই আক্রমণের তীব্র নিন্দা করেছেন তিনি। পুজোতে তৃণমূলের রাজনৈতিক রং লাগানোর চক্রান্তের প্রতিবাদও জানান তিনি। পুলিশ উপযুক্ত ব্যাবস্থা না নিলে ঘটনার আন্দোলনে নামবেন তারা বলে সাফ জানিয়েছেন তিনি।

অন্য দিকে এবিষয়ে গঙ্গারামপুরেএ তৃণমূল নেতা সত্যেন্দ্রনাথ রায় ঘটনার কথা অস্বীকার করেছেন। কোথায় কি হচ্ছে আর তার দায় চাপানো হচ্ছে তৃণমূলের উপর। তাদেরকে বদনাম করতে এমনটা করা হচ্ছে।

অন্য দিকে গঙ্গারামপুর থানার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অভিযোগ পেলে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন।

error: Content is protected !!