Breaking News

ধানের পর এবার কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি পেঁয়াজ কিনবে রাজ্য, গঙ্গারামপুরে ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

সংবাদ সারাদিন, গঙ্গারামপুর : দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার কৃষকের কাছ থেকে পেঁয়াজ কিনবে রাজ্য সরকার। মঙ্গলবার গঙ্গারামপুরে প্রশাসনিক বৈঠক থেকে এমনি কথা ব্যবসায়ীদেরকে জানান রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। তবে আগে জেলার চাহিদা পূরণের পরই বাড়তি পেঁয়াজ কিনবে সরকার বলে জানান তিনি। এমনকি পেঁয়াজ স্টোর করার জন্য জেলায় হিমঘর করার আশ্বাস দেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রয়োজনে জেলার বিভিন্ন কিষাণ মান্ডি গুলোতেও হিমঘর করার ব্যবস্থা করা যেতে পারেও বলেন তিনি। উদ্বৃত্ত পেঁয়াজ বাইরে বিক্রি না করে ঘরের লোকদের খাওয়ানোর কথা ব্যবসায়ীদের বলেন। বিপদে পড়লে বাইরের লোক নয় ঘরের লোক রায় আগে আপনাকে দেখবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

জানা গেছে, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা মূলত প্রধান জেলা। এখানে ধান, পাট ও গম প্রধান ফসল। তবে বেশ কিছু বছর ধরে এই জেলায় পেঁয়াজ বেশ ভালো পরিমাণে চাষ হচ্ছে। জেলার চাহিদা পূরণের পাশাপাশি বাইরে ও পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছে। তবে পেঁয়াজ স্টোর করার নির্দিষ্ট হিমঘর না থাকায় সমস্যা পরছে জেলার কৃষক থেকে ব্যবসায়ীরা। জেলার চাহিদা মিটিয়ে বাইরের রাজ্যে পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছে। তবে বাইরে নয় জেলার কৃষকদের পেঁয়াজ এবার কিনতে ইচ্ছুক রাজ্য সরকার। এর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থার আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর। এমনকি পেঁয়াজ সংরক্ষণের জন্য হিমঘর করার নির্দেশ জেলা শাসককে দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। প্রয়োজনে জেলার সব প্যাঁচ কিন্তু প্রস্তুত রাজ্য বলে এদিন গঙ্গারামপুরে মুখ্যমন্ত্রী জানান। এমনকি গঙ্গারামপুরের ৩০ একর জমির উপর ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক করার কাজ কতদূর এগিয়েছে তারও খোঁজ-খবর নেন। সেখানেই এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিয়াল গড়ে তোলা হবে বলে জানান।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার দুপুরে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার রিভিউ মিটিং করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। গঙ্গারামপুর স্টেডিয়ামে প্রশাসনিক আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান সহ জন প্রতিনিধিরা হাজির ছিলেন। জেলার উন্নয়ন মূলক কাজের অগ্রগতি ও সমস্যার সমাধানে জেলায় জেলায় প্রশাসনিক বৈঠক করছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। এদিন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা উন্নয়ন ও নানান সমস্যা নিয়ে গঙ্গারামপুর স্টেডিয়ামে প্রশাসনিক আধিকারিকদের নিয়ে রিভিউ মিটিং করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। বৈঠক শেষে বিকেল তিনটে নাগাদ মালদার উদ্দেশ্যে রওনা দেন মুখ্যমন্ত্রী।