Breaking News

হায়দরাবাদে পশু চিকিৎসককে ধর্ষণ করে খুন, পুলিশি এনকাউন্টারে খতম ৪ অভিযুক্ত

সংবাদ সারাদিন, ওয়েবডেস্ক: হায়দরাবাদে পশু চিকিৎসককে ধর্ষণ করে পুড়িয়ে মারার ঘটনায় ৪ অভিযুক্তের পুলিশের এনকাউন্টারে মৃত্যু হল৷ শুক্রবার সকালে হায়দরাবাদের ৪৪ নম্বর জাতীয় সড়কের উপর সেদিনের ঘটনার পুননির্মাণ করতে চার অভিযুক্তকে নিয়ে যায় পুলিশ। অভিযোগ ঘন কুয়াশায় সুযোগে ঘটনাস্থল থেকে পালানোর চেষ্টা করে ওই চার অভিযুক্ত। এরপর পুলিশি এনকাউন্টারে মৃত্যু হয় অভিযুক্ত চারজনের। ঘটনার কথা স্বীকার করেছে হায়দরাবাদ পুলিশ বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, সপ্তাহ দেড়েক আগে যুবতি পশু চিকিৎসককে ধর্ষণ করে এই ৪ অভিযুক্ত। তারপর পেট্রল ঢেলে আগুন পুড়িয়ে খুন করে৷ এই ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয় গোটা দেশ জুড়ে। উত্তাল হয় সংসদও৷ দ্রুত দোষীদের শাস্তির দাবিতে শুরু প্রতিবাদ-বিক্ষোভ। দোষীদের চরম শাস্তির দাবি ওঠে৷ অভিযুক্ত চারজন মহম্মদ আরিফ, জল্লু শিবা, জল্লু নবীন, চিন্তাকুন্তা চেন্নাকেশাভুলুকে চরম শাস্তি চান নিগৃহীতার পরিবারও৷ ক্রমেই চাপ বাড়ছিল হায়দরাবাদ সরকারের উপর৷ তদন্ত চলছিল।

তদন্তের স্বার্থেই আজ ভোর রাতে অকুস্থলে নিয়ে যাওয়া হয় ৪ অভিযুক্তকে৷ এনকাউন্টারের খবরে ওই তরুণীর পরিবার প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া দিয়েছে৷ তাঁরা খুশি বলেও জানিয়েছেন৷ এ দিনের এনকাউন্টার মনে করিয়ে দিল বছর কয়েক আগে আর একটি ঘটনাকে, সেবার অ্যাসিড হামলায় আক্রান্ত হয়েছিলেন এক তরুণী৷ সেই ঘটনার পরদিনই এনকাউন্টারে মৃত্যু হয়েছিল অভিযুক্তের৷

এবিষয়ে হায়দরাবাদ পুলিশ কমিশনার অঞ্জনি কুমার জানান, আগে থেকে ঠিক করেই ৪ অভিযুক্তকে নিয়ে ঘটনাস্থানে যাওয়া হয়েছিল। উদ্দেশ্য ছিল সে দিন কী ভাবে ঘটনা ঘটিয়েছিল তারা তার পুননির্মাণ করা। তখন ঘড়িতে ভোর সাড়ে তিনটে৷ পুলিশি প্রহরা ছিল যথেষ্ট৷ গোটা এলাকা ছিল কুয়াশায় মোড়া। সেই সুযোগেই পালানোর চেষ্টা করে অভিযুক্তরা৷ তখনই এনকাউন্টার করা হয়৷