Breaking News

দ্রুত হারে ছড়াচ্ছে করোনার সংক্রমণ, বিশ্বজুড়ে মহামারি ঘোষণা WHO-র

সংবাদ সারাদিন, ওয়েবডেস্ক: চিন ছাড়িয়ে এবার গোটা দুনিয়ায় থাবা বসিয়েছে করোনা ভাইরাস। এশিয়া, ইউরোপ এমনকি উত্তর ও লাতিন আমেরিকাতেও মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে। গোটা বিশ্বে মৃত্যু হয়েছে প্রায় সাড়ে চার হাজারের মতো মানুষের। আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ছাড়িয়েছে। এবার করোনা ভাইরাসের জেরে রোগকে (COVID-19) বিশ্বব্যাপী মহামারির তকমা দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা WHO।

উল্লেখজনক ভাবে, চিনের যে ইউহান থেকে যে ভাইরাস প্রথম ছড়িয়েছিল তা আজ গোটা বিশ্বে দাপট দেখাচ্ছে। কিন্তু যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে এই মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে লড়াই করেছে চিন প্রশাসন। যার ফলে ইউহানে পরিস্থিতি ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে। আক্রান্তের সংখ্যাও আস্তে আস্তে কমছে। তবে ইটালি ও ইরানে মারণ ভাইরাসের সংক্রমণে মৃত্যুমিছিল বেড়েই চলেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, চিনের পর এই দুই দেশই করোনার জেরে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। শীঘ্রই বাকি দেশগুলিও এই ভয়াবহতা দেখতে পারে বলে আশঙ্কা করেছে WHO।

সংস্থার ডিরেক্টর জেনারেল টেড্রস আধানম ঘিব্রেসুস বুধবার জানিয়েছেন, ‘দ্রুত হারে সংক্রমণ বৃদ্ধি এবং অব্যবস্থা দেখে উদ্বেগ বাড়ছে। তাই COVID-19 বিশ্বব্যাপী মহামারির আকার নিয়েছে বলা যেতেই পারে। তবে তার মানে এই নয় যে, আশা ছেড়ে দেওয়া হবে। বরং তাঁর আশা, সব দেশ চেষ্টা করলে এই মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ রুখে দিতে পারে। প্রত্যেক দেশকে দ্রুত জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়ার আরজি জানানো হয়েছে। বলিষ্ঠ পদক্ষেপ করার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে। বিপদ ঘণ্টা বাজানো হয়েছে। জোরে এবং স্পষ্টভাবে।’

এবার প্রশ্ন উঠছে বিশ্বব্যাপী মহামারি কী? যখন কোনও রোগ বা সংক্রমণ দ্রুত হারে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে তখন তাকে বিশ্বব্যাপী মহামারির তকমা দেওয়া হয়। এই ধরনের মহামারি ভৌগলিকস্তরে ছড়িয়ে পড়ার উপর নির্ভর করে। WHO জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত বিশ্বের ১১৪টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এই মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ। মৃত্যু হয়েছে ৪,২৯১ জনের। ১ লক্ষ ১৮ হাজার মানুষ ভাইরাসে আক্রান্ত।(তথ্য সৌজন্যে: প্রতিদিন)