Breaking News

আমফানে জেলার ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে বালুরঘাটে প্রশাসনিক বৈঠক বনমন্ত্রীর

সংবাদ সারাদিন, বালুরঘাট: ঘূর্ণিঝড় আমফানের জেরে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা জুড়ে কী কী ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তা খতিয়ে দেখতে বুধবার বালুরঘাটে প্রশাসনিক আধিকারিক ও জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে বৈঠক করলেন মন্ত্রী রাজীব ব্যানার্জি। বুধবার বিকেলে বালুরঘাট প্রশাসনিক ভবন সংলগ্ন বালুছায়ায় অনুষ্ঠিত হয় এই প্রশাসনিক বৈঠক।

এদিনের বৈঠকে হাজির ছিলেন জেলাশাসক নিখিল নির্মল, পুলিশ সুপার দেবর্ষি দত্ত, ডিআইজি প্রসূন ব্যানার্জি, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা, রাজ্যসভার সাংসদ অর্পিতা ঘোষ সহ অন্যান্য আধিকারিক সহ জনপ্রতিনিধিরা।

এদিকে জেলায় আমফানের তেমন প্রভাব পড়লেও প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রায় ১৮ হাজার কৃষক। ভেঙে পড়েছে বেশ কিছু কাঁচা বাড়ি। এমনকি মঙ্গলবার রাতেও ভালো বৃষ্টি হয়েছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায়। সেই সব বিষয় নিয়েই জেলা প্রশাসনের কাছে পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট চেয়েছেন। সেই রিপোর্ট তিনি নবান্নে পৌঁছে দেবেন বলে সাংবাদিকদের জানান রাজীব ব্যানার্জি।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার তিনি গৌড়বঙ্গের তিন জেলা পরিদর্শনের জন্য মালদায় আসেন। মালদার পর বুধবার সকালে উত্তর দিনাজপুর জেলায় যান তিনি। এরপর উত্তর দিনাজপুর থেকে বালুরঘাটে প্রশাসনিক বৈঠক করতে আসেন।

এদিন বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বনমন্ত্রী জানান, করোনা ও আমফানের ফলে বিধ্বস্ত দক্ষিণবঙ্গ। আমফানের জেরে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার অবস্থা কী, তা খতিয়ে দেখতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি তাকে এখানে পাঠান। সেই মত এদিন প্রশাসনিক আধিকারিক ও জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে বৈঠক করেন।

তিনি জানান, জেলায় আমফানের তেমন প্রভাব না পড়লেও প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে প্রায় ১৮ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। বেশ কিছু কাঁচা বাড়ি ভেঙে পড়েছে। এমনকি মঙ্গলবার রাতেও ভালো বৃষ্টি হয়েছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায়। সেই সব বিষয় নিয়েই জেলা প্রশাসনের কাছে ক্ষতির পূর্ণাঙ্গ বিবরণ চেয়েছেন। সেই রিপোর্ট তিনি নবান্নে পৌঁছে দেবেন। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি সবসময়ের জন্য রয়েছেন।