Breaking News

উত্তর প্রদেশে গ্রেফতার একই সঙ্গে ২৫টি স্কুলে চাকরি করা কোটিপতি শিক্ষিকা

সংবাদ সারাদিন, ওয়েবডেস্ক : একটা চাকরি জোটাতে জুতোর সুকতলা খয়ে যায়, সেখানে একজন শিক্ষিকা একই সঙ্গে ২৫টি স্কুলে চাকরি করছেন। শুধু চাকরিই নয় ২৫টি স্কুল থেকে মোটা টাকার বেতনও পাচ্ছেন। উত্তর প্রদেশে এভাবে অনামিকা শুক্লা নামের এক শিক্ষিকা সরকারের ১ কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ায় চাঞ্চল্য রাজ্য জুড়ে।

একই সঙ্গে একই সময়ে উত্তর প্রদেশের ২৫টি স্কুলে পড়াচ্ছেন ভুয়ো শিক্ষিকা অনামিকা শুক্লা। টানা ১৩ মাস এই কাজ চালিয়ে গিয়েছেন তিনি। এবং প্রত্যেকটি স্কুল থেকেই মোটা টাকা বেতন পেয়েছেন বিজ্ঞানের এই শিক্ষিকা। প্রায় ১ কোটি টাকা বেতন তুলেছেন তিনি। এই চক্রের আঁচ পেতেই তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়। তদন্তে রায়বরেলি কস্তুরবা গান্ধী বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষিকার এমনই তথ্য উঠে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়ায় গোটা উত্তর প্রদেশ জুড়ে।

অভিযুক্তের নাম অনামিকা সিংহ। বাড়ি ফারুকাবাদে। অনামিকা শুক্লা নামে চাকরি করতেন। অনামিকা শুক্লা এই একই নাম ও জাল শংসাপত্র ব্যবহার করে রাজ্যের বাকি ২৪টি জেলায় আরও ২৪জন মহিলা শিক্ষকতা করছেন। আম্বেদকরনগর, বাঘপত, আলিগড়, সাহারানপুর, প্রয়াগরাজের ২৫টি স্কুলে পড়াচ্ছেন তারা। এই ঘটনার নেপথ্যে বড় কোনও চক্র রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। সরকারের কোনও উচ্চ পদস্থ আধিকারিক এই ঘটনায় জড়িত থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কাসগঞ্জের বেসিক শিক্ষা অধিকার (বিএসএ) কার্যালয়ে পদত্যাগ পত্র জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয় ওই শিক্ষিকাকে। পদত্যাগ পত্র জমা দিতে এলে এক যুবক সহ অভিযুক্ত মহিলা অনামিকা সিংহকে কাসগঞ্জ পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

কাসগঞ্জ পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত মহিলার নাম অনামিকা সিংহ। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি শিক্ষকের চাকরির জন্য প্রায় দেড় বছর আগে মাইনপুরীতে রাজ নামে পরিচিত কাউকে এক লক্ষ টাকা দিয়েছিলেন বলে স্বীকার করেছেন।