Breaking News

মিডডে-মিলের সামগ্রী চুরি, ইটাহারে প্রধান শিক্ষকাকে স্কুল ঘরে আটকে বিক্ষোভ

সংবাদ সারাদিন, ইটাহার : মিড-ডে মিলের সামগ্রী চুরির অভিযোগে স্কুলের প্রধান শিক্ষকাকে স্কুল ঘরে আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখাল বেশ কিছু গ্রামবসী সহ অবিভাবকরা। শুক্রবার বিকালে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে ইটাহার থানার ইটাহার উত্তরপাড়া অবৈতনিক প্রাথিমিক বিদ্যালয়ে।

উল্লেখ্য, বিগত কয়েকদিন আগে স্কুলের পক্ষ থেকে ছাত্র ছাত্রীদের অবিভাবকদের হাতে সরকারি নির্দেশ মত স্কুল বন্ধের মধ্যেও মিড-ডে মিলের চাল, আলু, ছোলা বিতরণ করা হয়। তারপর আবার স্কুল বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু আজকে স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা যুথিকা রানী সরকার স্কুলে এসে মিড-ডে মিলের চাল, আলু, ছোলা সহ অন্যান্য সামগ্রী তার স্বামীর হাতে বাড়ি নিয়ে চলে যায়। সেই সময় এলাকার কিছু মহিলারা বিষয়টি লক্ষ্য করে শিক্ষিকার কাছে বিষটি জানতে চাইলে তিনি কোন উত্তর দিতে পারেন নি।

এরপর এলাকার বাসিন্দা সহ বেশ কিছু ছাত্র ছাত্রীর অবিভাবক ও অবিভাবিকারা ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে এবং স্কুলের প্রধান শিক্ষিকাকে স্কুল ঘরে আটকে রেখে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। পরে শিক্ষাকার স্বামী চুরি করে নিয়ে যাওয়া জিনিসের কিছু ফেরত নিয়ে আসলে বিক্ষোভ কারীদের রোষের মধ্যে পরে। এই প্রধান শিক্ষার বিরুদ্ধে আগেও এই ভাবে মিড-ডে মিলের সামগ্রী চুরির অভিযোগ ছিল।

বিক্ষোভকারীরা জানান, কিছুদিন আগে এই উত্তরপাড়া প্রাথমিক স্কুলের পক্ষ থেকে মিড-ডে মিলের জিনিস ছাত্র ছাত্রীদের বিতরণ করা হয়। কিন্তু স্কুল আজকেও বন্ধ ছিল। এই বন্ধ স্কুল খুলে প্রধান শিক্ষিকা মিড-ডে মিলের চাল, আলু, ছোলা তার স্বামীকে দিয়ে চুরি করে নিয়ে যায়। তারপর জিজ্ঞাসা করলে তার স্বামী যা জিনিস বাড়ি নিয়ে যায় তার অল্প কিছু জিনিস ফেরত নিয়ে আসে। আগেও এই শিক্ষিকা এই রকম কাজ করেছে। স্কুল শিক্ষিকার উপযুক্ত শাস্তি আর অবিলম্বে অনত্য সরানোর দাবি জানান বিক্ষোভকারী বাসিন্দারা।

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষিকা যুথিকা রানী সরকার জানান,”আমি মিড-ডে মিলের জিনিস চুরি করিনি। আমার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ ভিত্তিহীন। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে ইটাহার থানার পুলিশ। পুলিশ এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।”