Breaking News

শিক্ষিকার বদলি রুখতে বেনজির বিক্ষোভ মালদা চাঁচলের কানাইপুর জুনিয়র হাইস্কুলে

সংবাদ সারাদিন, মালদা: শিক্ষিকার বদলি রুখতে বেনজির বিক্ষোভ মালদার চাঁচোল থানা এলাকার কানাইপুর জুনিয়র হাইস্কুলে। পুলিশ ও প্রশাসনের সামনেই স্কুলের টিআইসি সহ অন্যান্য শিক্ষক এবং অশিক্ষক কর্মীদের ঘরে তালা বন্ধ করে বিক্ষোভ গ্রামবাসী ও ছাত্র-ছাত্রীদের। ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা গোটা এলাকা জুড়ে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে পৌঁছায় চাচল থানার পুলিশ।

মালদার চাচোল মহাকুমার প্রত্যন্ত এলাকা চন্দ্রোপাড়া অঞ্চলের কানাইপুর। বিগত কয়েক দশক ধরে এলাকায় কয়েকশো ছাত্র-ছাত্রীদের একমাত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কানাইপুর জুনিয়র বেসিক সরকারি হাই স্কুল। বর্তমানে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা প্রায় 300। আর এই 300 জন ছাত্রছাত্রীর পেছনে রয়েছে মাত্র দুই জন শিক্ষক। হঠাৎ করেই স্থানীয় বাসিন্দারা জানতে পারেন দুই জন শিক্ষকের মধ্যে একজন শিক্ষকা সায়নী ঘোষের বদলি হয়ে গেছে। আর এই ঘটনা সামনে আসতেই শোরগোল পড়ে গোটা এলাকা জুড়ে। স্থানীয়দের দাবি ২জন শিক্ষক দিয়ে স্কুলে কোনওরকমে পঠন-পাঠন চললেও একজন শিক্ষক দিয়ে তা সম্ভব নয়। শিক্ষক বদলির প্রতিবাদে বুধবার সকাল থেকেই কানাইপুর এলাকা উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। স্থানীয় অভিভাবক অভিভাবিকারা স্কুল ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। স্কুলের শিক্ষক ও অশিক্ষকদের ঘরে তালা বন্ধ করে দেখাতে থাকে বিক্ষোভ। স্থানীয়দের দাবি অবিলম্বে শিক্ষক বদলির নির্দেশ বাতিল না করা হলে এই আন্দোলন ও বৃহত্তর আকারে করা হবে।

কানাইপুর জুনিয়ার হাই স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা জানাই মাত্র দুই জন শিক্ষক দিয়ে কোনওরকমে আমাদের স্কুল চলে। তার মধ্যে বেশ কয়েকদিন আগে একজন শিক্ষিকা সায়নী ঘোষকে বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই বদলির নির্দেশের ফলে শিক্ষা ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে আমাদের স্কুলে। শিক্ষিকার বদলির প্রতিবাদেই আজকে আমাদের বিক্ষোভ আন্দোলন। আমরা চাই এই শিক্ষিকার বদলি আটকাতে।

এই স্কুলের অভিভাবক মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ জানান মাত্র দুই জন শিক্ষক ও শিক্ষিকা রয়েছে স্কুলে। তাদের দিয়ে কোনওরকমে চলে স্কুলের পঠন পাঠন এর কাজ। এলাকার অধিকাংশ মানুষই মধ্যবিত্ত পরিবারের। এলাকায় নেই অন্য কোন বড় ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তাই এই স্কুলের দিকে তাকিয়ে থাকতে হয় এলাকার প্রত্যেক পড়ুয়াদের। আমরা জানতে পারি বেশ কয়েকদিন আগে স্কুলের শিক্ষিকাকে বদলি করে দেওয়া হয়েছে। আমাদের দাবি স্কুলের পঠন পাঠন স্বাভাবিক রাখতে এই শিক্ষিকার বদলি আটকাতে হবে। তাই এরই প্রতিবাদে আজ স্কুলে শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মীদের তালাবন্ধ করে আমাদের এই বিক্ষোভ। অবিলম্বে এই নির্দেশ বাতিল না করা হলে আরও বৃহত্তর আন্দোলনের পথে হাঁটবো আমরা।

ঘটনা জানতে পেরে স্কুলে ছুটে আসে চাচোল থানার পুলিশ। অবশেষে পুলিশের আশ্বাসে তালা বন্ধ অবস্থা থেকে মুক্ত হন শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মীরা।

কানাইপুর জুনিয়ার হাই স্কুলের টিআইসি ভিক্টর কুণ্ডু জানান, এলাকার অভিভাবক অভিভাবিকা এবং ছাত্র ছাত্রীরা স্কুলের শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মীদের ঘরে তালাবন্ধ করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। তিনি বলেন স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি রয়েছে এই স্কুলের শিক্ষিকা বদলি রোধ করতে হবে। এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।