পতিরামে মদ্যপ অবস্থায় জামাইকে মারধরের অভিযোগ সিভিক ভলান্টিয়ারের বিরুদ্ধে, গ্রেফতার শিক্ষক সহ ২

সংবাদ সারাদিন, পতিরাম: শ্বশুরবাড়িতে ফেরার পথে পাড়ার এক জামাইকে মদ্যপ অবস্থায় বেধরক মারধর করলেন পতিরাম থানার এক সিভিক ভলান্টিয়ার। এমনই অভিযোগে পতিরাম থানার পুলিশ ওই থানারই কর্তব্যরত এক সিভিক ভলান্টিয়ারকে গ্রেফতার করেছে। সেই সঙ্গে আরও এক অভিযুক্ত শিক্ষককে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পতিরাম থানার বোল্লা গ্রামপঞ্চায়েতের মল্লিকপুর এলাকায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই সিভিক ভলান্টিয়ারের বাড়ি পতিরাম থানার বোল্লা গ্রামপঞ্চায়েতের মল্লিকপুর এলাকায়। সেই এলাকারই একজন প্রাথমিক শিক্ষক ওই ঘটনার সাথে জড়িত বলে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে ওই দু’জন মদ্যপ অবস্থায় পাড়ার জামাইয়ের পথ আটকায়। ওই জামাই বুনিয়াদপুর থেকে ফিরছিল। স্থানীয়দের অভিযোগ, ব্যক্তিগত শত্রুতা নিয়ে বচসা বাঁধে। এরপর ওই দুইজন মিলে ওই জামাইকে বেধড়ক মারধর করে। ঘটনাস্থলে স্থানীয় বাসিন্দারা ছুঁটে আসলে মদ্যপ অবস্থায় আরও কয়েকজনকে মারধর করে ওই দুই অভিযুক্ত। সিভিক ভলান্টিয়ারের ওই দাদাগিরির ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ যায়। রাতেই ওই দুইজনকে পতিরাম থানার পুলিশ গ্রেফতার করে। এদিকে ওই দুইজনের মারে বালুরঘাট হাসপাতালে ভরতি রয়েছে ওই ব্যক্তি। এদিন ওই দুই অভিযুক্তকে আদালতে তোলা হয়েছে।

এবিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার রাহুল দে বলেন, গতকাল রাতে পতিরাম থানার একজন সিভিক ভলান্টিয়ার এক ব্যক্তিকে মারধর করেছে। যা নিয়ে অভিযোগ থানায় দায়ের হয়েছে। পতিরাম থানার পুলিশ ওই সিভিক ভলান্টিয়ার সহ আরও একজনকে গ্রেফতার করেছে।

Spread the love