বাঁকুড়ার মালপাড়ায় ছড়াল ডায়েরিয়া, আক্রান্ত ১২

সংবাদ সারাদিন, বাঁকুড়া: বাঁকুড়া শহরের চার নম্বর ওয়ার্ডের পর এবার ১০ নম্বর ওয়ার্ডের দুবেরবাঁধ মালপাড়া এলাকায় ছড়িয়ে পড়ল ডায়েরিয়া। গত তিনদিন ধরে ওই এলাকায় একে একে মোট বারো জন বাসিন্দা ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে বলে খবর। খবর পেয়ে শনিবার সকালে এলাকায় যায় পুরসভার মেডিকেল টিম। বাঁকুড়া শহরে ডায়েরিয়ার প্রকোপ ক্রমশ বেড়েই চলেছে। সপ্তাহ খানেক আগে বাঁকুড়া শহরের চার নম্বর ওয়ার্ডের ময়রাবাঁধ হাড়ি পাড়ায় ডায়েরিয়ার প্রকোপ দেখা দেয়। বাঁকুড়া পুরসভার পক্ষ থেকে দফায় দফায় মেডিকেল টিম পাঠিয়ে ওই এলাকায় ডায়েরিয়া কোনোক্রমে নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। কিন্তু ওই এলাকায় ডায়েরিয়া নিয়ন্ত্রণে আসতে না আসতেই বাঁকুড়া শহরের দশ নম্বর ওয়ার্ডের দুবেরবাঁধ মালপাড়ায় ডায়েরিয়ার প্রকোপ দেখা দেয়।

জানা গেছে, দিন তিনেক আগে থেকে ওই এলাকায় পেটে ব্যাথা, বমি ও পাতলা পায়খানার উপসর্গ নিয়ে অসুস্থ হতে শুরু করেন বাসিন্দারা। আক্রান্ত হতে শুরু করে শিশুরাও। চারজন অসুস্থকে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিকেল কলেজে ভরতিও করা হয়। যার মধ্যে দু’জন সুস্থ হওয়ায় ইতিমধ্যেই বাড়ি ফিরেছেন। অনেকেই অসুস্থ হয়ে বাড়িতেই আছেন। স্থানীয়দের দাবি সব মিলিয়ে বারো জন ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। এদিকে খবর পেয়ে এদিন পুরসভার মেডিকেল টিম এলাকায় পৌঁছায়। অসুস্থদের চিকিৎসা করার পাশাপাশি বাসিন্দাদের মধ্যে ও আর এস সহ প্রয়োজনীয় ওষুধ বিতরণ করা হয়। প্রাথমিক তদন্তে স্বাস্থ্য কর্মীদের অনুমান নলকূপ ও স্থানীয় দুবেরবাঁধের জল থেকেই ডায়েরিয়া ছড়িয়ে পড়েছে। ডায়েরিয়া ছড়িয়ে পড়ার সঠিক কারণ জানতে নলকূপ ও পুকুরের জলের নমুনা সংগ্রহ করা হবে বলে জানিয়েছেন পুরসভার স্বাস্থ্য কর্মীরা।

স্থানীয় বাসিন্দা চম্পা মালাকার ও রুপু মালাকার বলেন, ” এলাকায় ডায়েরিয়া ছড়িয়ে পড়ায় আমরা যথেষ্ট আতঙ্কে আছি। বড়দের পাশাপাশি শিশুরাও আক্রান্ত হওয়ায় ভয় আরও বেড়েছে”। বাঁকুড়া পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারপারসন অলকা সেন মজুমদার বলেন, ” খবর পাওয়ার পরই পুরসভার মেডিকেল টিম ওই এলাকায় পাঠানো হয়েছে। আমি নিজেও এলাকায় গিয়েছিলাম। ১২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আমরা ওই এলাকার পানীয় জলের উৎস থেকে নমুনা নিয়ে তা পরীক্ষার জন্য পাঠাচ্ছি। প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে”।

Spread the love