আবর্জনার স্তুপ থেকে উদ্ধার সদ্যোজাত শিশু, চাঞ্চল্য বংশীহারীতে

সংবাদ সারাদিন, বংশীহারী: শুক্রবার দুপুরে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বংশীহারী ব্লকের রসিদপুর গ্রামীণ হাসপাতালের পেছনে আবর্জনার স্তুপ থেকে উদ্ধার সদ্যোজাত শিশু(পুত্র)। এদিন বিষয়টি নজরে আসতেই ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় রসিদপুর গ্রামীণ হাসপাতাল চত্বরে। এদিকে সদ্যোজাত ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে রসিদপুর এবং পরে চিকিৎসার জন্য গঙ্গারামপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে পাঠানো হয়। কে এই সদ্যোজাত শিশুটিকে হাসপাতালের পিছনে ফেলে গেল তার তদন্ত শুরু করেছে বংশীহারী থানার পুলিশ।

জানা গেছে, শুক্রবার দুপুরে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার রসিদপুর গ্রামীণ হাসপাতালে কর্তব্যরত সিভিক ভলেন্টিয়াররা হাসপাতালের পিছনে আবর্জনা থেকে শিশুর কান্নার আওয়াজ শুনতে পান। কান্নার আওয়াজ পেতেই জঙ্গলের দিকে এগিয়ে যায়। জঙ্গলের কাছে যেতেই চক্ষু চড়কগাছ হয়ে যাওয়ার জোগান হয় সিভিক ভলেন্টিয়ারদের। বিষয়টি নজরে আসতেই খবর দেওয়া হয় হাসপাতালে। তড়িঘড়ি ছুটে আসে হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীরা। এরপরই সদ্যোজাত শিশুটিকে উদ্ধার করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয় রসিদপুর গ্রামীণ হাসপাতালে। শিশুটির উন্নতর চিকিৎসার জন্য গঙ্গারামপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে পুত্র শিশুটির শারীরিক অবস্থা ঠিকঠাক রয়েছে। কি কারণে সদ্যোজাত শিশুটিকে নোংরা আবর্জনায় ফেলে পালিয়ে গেল শিশুর পিতা মাতা তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে বিভিন্ন মহলে।

এবিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুর রহমান ও জিতেন চৌধুরী জানান, রসিদপুর হাসপাতালে তাদের রোগী রয়েছে। হাসপাতলে বসে থাকার সময় জানতে পারেন হাসপাতালের পিছনে একটি সদ্যোজাত শিশু পড়ে রয়েছে। তারপর ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। কে শিশুটিকে ফেলে গেছে বিষয়টি তাদের কাছেও পরিষ্কার নয়।

অন্যদিকে রসিদপুর হাসপাতালের চিকিৎসক ডা: বিশ্বজিৎ দাস জানিয়েছেন, হাসপাতালের পাশে ওই সদ্যোজাত শিশুটি উদ্ধার হয়েছে। শিশুটি বর্তমানে সুস্থ রয়েছে। তবে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য গঙ্গারামপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

Spread the love