পতিরাম বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরকারি পোশাক বিতরণে আনন্দ-উচ্ছ্বাস




বালুরঘাট, ২৪ আগস্ট: এবছরে দীর্ঘ আট মাস অতিবাহিত হবার পর আজকে পতিরাম বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশুদের নতুন পোশাক বিতরণ করা হয়। এজন‍্য শিক্ষার্থীদের মধ্যে আনন্দের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। গত দুইবছর তারা ঘরবন্দি থেকেছে, ফলে ইউনিফর্ম পরে বিদ‍্যালয়ে আসতেও পারেনি। পূর্ব ঘোষণা মত স্বনির্ভর দল পতিরামের পথসাথী থেকে সরকারি নির্দেশে ছাত্রছাত্রীদের পোশাক সংগ্রহ করে বিদ‍্যালয়ে বিতরণের জন‍্য নিয়ে আসে।

এদিন বিদ‍্যালয়ে গিয়ে আমরা জেনেছি, বিদ‍্যালয়ে 390 জন শিশু শিক্ষার্থী রয়েছে। আজ 365 জন শিশু বিদ‍্যালয়ে উপস্থিত হয়েছে। সকল শিশুর হাতে দুই সেট নতুন নীল- সাদা পোশাক তুলে দেওয়া হয়েছে। আজ শিশুদের মধ‍্যে প্রথম পোশাক বিতরণ করেন পতিরাম থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক শ্রী রাজকুমার বসাক মহাশয়। তিনি বলেন, মাস্টারমশাই দিদিমণিরা সবসময়ই শিশুদের খুব কাছে থেকে পরিচালনা করেন। আজ এমন অভিনব অনুষ্ঠানে এসে শিশুদেরকে নতুন ইউনিফর্ম দিতে পেরে আমি অভিভূত ও গর্ববোধ করছি।

বিদ‍্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্রী পার্থ প্রতিম চট্টোপাধ্যায় বলেন, কয়েক মাস আগে স্বনির্ভর দলের সদস্যরা বিদ‍্যালয়ে এসে শিশুদের পোশাকের মাপ নিয়ে যান। প্রায় চারমাস পর প্রত‍্যেক শিশুর জন্য তারা নতুন দুই সেট পোশাক বানিয়ে এনেছেন। আজকেই আমরা প্রায় সকলকেই পোশাক দিতে পেরেছি। কিছু সংখ্যক পোশাক আগামীকাল বিতরণ করা হবে। সরকারের নির্দেশে শিশুদের নতুন পোশাক বিতরণ করা এ অত্যন্ত প্রশংসনীয় কর্মকান্ড।

স্বনির্ভর দলের দলনেত্রী লায়লা বিবি জানিয়েছেন, আমার পতিরামের অনেকগুলো বিদ‍্যালয়ের নতুন পোশাক তৈরির বরাদ্দ পেয়েছি। আজ প্রথমেই পতিরাম বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এসেছি সকলের পোশাক নিয়ে। এরপর অন‍্যান‍্য বিদ‍্যালয়ে আমাদের দলের সদস‍্যারা পোশাক নিয়ে পৌঁছে যাবেন। সরকারি নিয়মানুসারে উন্নত মানের পোশাক সকলকে দিতে পেরেছি। তবে আরও মাসখানেক আগে দিতে পারলে ভালো হত।

নতুন পোশাক পাওয়া বিদ‍্যালয়ের এক শিশু আরাধ‍্যা কাহালি বলেছে, আমাদের ড্রেস ছাড়া স্কুলে আসতে ভালো লাগে না। আজকে আমরা নতুন ড্রেস পেয়েছি তাই খুব আনন্দ হচ্ছে। এখন থেকে প্রতিদিন আমরা স্কুল ড্রেস পড়েই বিদ‍্যালয়ে আসব।

একজন অভিভাবক শিল্পী সরকার জানিয়েছেন, দুই সেট করে পোশাক আমাদের বাচ্চাদেরকে দেওয়া হয়েছে। পোশাকের মান যথেষ্ট ভালোই হয়েছে। তবে কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন থাকবে বছরের শুরুতেই যাতে স্কুল ইউনিফর্মের ব‍্যবস্থা যাতে করা যায়। কারণ অনেক অভিভাবক আছেন যারা ড্রেস কিনে দিতে পারেন না, তারা তাদের বাচ্চাদের প্রথম থেকেই স্কুল ড্রেস পরে স্কুলে পাঠাতে পারবেন। এরপর স্কুলে সকলের পরিচয় কার্ড করার জন‍্য অনুরোধ করছি।

Spread the love